কালাইয়ে অল্প বৃষ্টিতেই ছয়টি সরকারী অফিস চত্বরে হাঁটু পানি সমাধানে নেই উদ্যোগ

জলাবদ্ধতায় জনদুর্ভোগ নিরসনে নেই কোন উদ্যোগ কালাইয়ে অল্প বৃষ্টিতেই ছয়টি অফিস চত্বরে হাঁটু পানি জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার জনবহুল ছয়টি অফিস চত্বরে অল্প বৃষ্টিতেই হাঁটু পর্যন্ত পানি জমে। এতে ওই দপ্তরগুলোতে প্রয়োজনীয় কাজে এসে দুর্ভোগ পোহাতে হলেও এর সমাধানে কোন উদ্যোগ নেয়া হয়না বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

সরেজমিন দেখা যায়, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তার কার্যালয়সহ পল্লী উন্নয়ন, যুব উন্নয়ন, সেটেলম্যান্ট, কেন্দ্রী সমবায় সমিতি, দলিল লেখক সমিতি ও সাব-রেজিস্টার কার্যালয় চত্বরে অল্প বৃষ্টিতেই হাঁটু পর্যন্ত পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এতে ওই দপ্তরগুলোতে প্রয়োজনীয় কাজ সারতে গিয়ে প্রতিনিয়তই জনগণকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় । ভুক্তভোগীরা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে এ জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন।

কালাই পৌরসভার থুপসারা মহল্লার মাজেদুর রহমান সাইদুর জানান, কবরস্থানের জন্য এক শতক জমি রেজিস্ট্রি করতে ৯ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। দলিল সম্পাদন করার পানি হওয়ায় অফিসের সামনে একহাটু পানি জমে। ফলে দলিল শক্ত হাতে বহন করতে হয়েছে। কেননা, হাত থেকে দলিলের কাগজ পরলেই স্ট্যাম্পগুলো পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে যেতো।

কালাই সাব-রেজিস্টার অফিসের অনেকেই জানান, এ অফিস থেকে সরকার সপ্তাহে লাখ-লাখ টাকার রাজস্ব পায়। অথচ অল্প বৃষ্টিতেই এখানে যে জলাব্ধতার সৃষ্টি হয় তা নিরসনে কেউ উদ্যোগ নেয়না। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। তারা এ দুর্ভোগের সমাধান দাবি করেন।

কালাই দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সুজাউল ইসলাম জানান, তাদের অফিসের সামনের নীচু মাঠটিতে বালি দিয়ে ভরাট করে দেয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে বার বার অনুরোধ করা হয়েছে; কিন্তু কোন কাজ হয়নি।

কালাই উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ যুব মহিল লীগ কালাই উপজেলা শাখার সভাপতি মরিয়ম নেছা স্বপ্না জানান, প্রতি অর্থ বছরে উপজেলার উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায়- টিআর, কাবিখা ও কাবিটার (সাধারণ ও বিশেষ) বরাদ্দ থাকে; সেখান থেকে কিছু অংশ এসব অফিস চত্বর ভরাটে বরাদ্দ দেয়ার জন্য আগামী সমন্বয় সভায় প্রস্তাব করা হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *