জয়পুরহাটে সস্ত্রীক আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর ও তার স্ত্রী কামরুন্নাহার শিমুলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) মামলা হয়েছে।

দুদক বগুড়া জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নূর আলমের দায়ের করা এজাহারের পরিপ্রেক্ষিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক কামরুজ্জামান সোমবার (২৫ এপ্রিল) এ মামলা রুজু করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর ২০১৯ সালের ৩১ জুলাই বগুড়া দুর্নীতি দমন অফিসে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সম্পদ বিবরণী দাখিল করেছেন। যেখানে ওই নেতা ১ লাখ ৬৫ হাজার ৮২১ টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জনের তথ্য গোপন করেছেন। এছাড়া অসাধু উপায়ে অর্জিত ও তার জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণ ৯৯ লাখ ১০ হাজার ৭৯৪ টাকা মূল্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ অর্জন করে নিজে ভোগ দখল করে রেখেছেন। একইসঙ্গে তার স্ত্রী কামরুন্নাহার শিমুলের ৩৬ লাখ ৭ হাজার টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ এবং ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের প্রমাণ পেয়েছে দুদক।

বিষয়টি দীর্ঘ তদন্ত শেষে অভিযুক্ত গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর এবং তার স্ত্রী কামরুন্নাহার শিমুলের বিরুদ্ধে গত ১৩ এপ্রিল দুদকের ঢাকাস্থ প্রধান কার্যালয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। যার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার দুদকের সহকারী পরিচালক নূর আলম বগুড়ার দুদক কার্যালয়ে এজাহার দাখিল করলে অন্য সহকারী পরিচালক কামরুজ্জামান মামলাটি রুজু করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর বলেন, দুদকে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে সেটা জানি। আমি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবো তা কয়েকদিন আগে ঘোষণা দিয়েছি। সে কারণেই একটি পক্ষ আমার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে। যাতে করে আমি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতে না পারি।

রাশেদুজ্জামান/এমআরআর/এমএস

সোর্সঃ জাগোনিউজ ২৪

Leave a Reply

Your email address will not be published.