সারাদেশ

সময়ই বলে দেবে গণতন্ত্র কোন দিকে যাচ্ছে: মঈন খান

ডেস্ক রিপোর্ট: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর স্বাগত জানিয়ে চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন জায়গায় আনন্দ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা। অন্যদিকে তফসিলকে প্রত্যাখান করে কয়েকটি জায়গায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি ও জামায়াতের নেতাকর্মীরা।

বুধবার (১৫ নভেম্বর) রাত ৭টায় তফসিল ঘোষণার পর পরই স্বাগত জানিয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উপ কমিটির সাবেক সদস্য এবং ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস আরশেদুল আলম বাচ্চুর নেতৃত্ব আনন্দ মিছিল বের করা হয়। নগরীর জিইসি মোড় এলাকা থেকে শুরু হওয়া মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে

পুনরায় জিইসি এসে শেষ হয়। পরে সেখানে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক ও ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান তারেকের সভাপতিত্বে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য দেন আরশেদুল আলম বাচ্চু। তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা করা দ্বাদশ তফসিলকে জনগণের তফসিল আখ্যায়িত করে বলেন, সংবিধান রক্ষায় গণতান্ত্রিক অধিকার ও ভোটের অধিকার নিশ্চিত করতে আগামী ৭ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নিবার্চন ঘোষণা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

দেশকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে নিবার্চনের কোনো বিকল্প নেই। এ নিবার্চন এ দেশে , এ নিবার্চন জনগণের নিবার্চনের পরিবেশ বানচালকারীদেরও এদেশে রক্ষা নাই। সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ইলিয়াস উদ্দিন, জাকারিয়া দস্তগীর,খোরশেদ আলম মানিক,শরফুল আনাম জুয়েল, সৈয়দ আনিসুর রহমান,তোফায়েল আহমেদ মামুন,এম হাসান আলী প্রমুখ।

তফসিলকে স্বাগত জানিয়ে ১৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর হারুনুর রশিদের নেতৃত্বেও একটি আনন্দ মিছিল করা হয়। এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ডের যৌথ উদ্যোগেও একটি আনন্দ মিছিল হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় নগরীর দারুল ফজল মার্কেটের সামনে থেকে নিউমার্কেট পর্যন্ত এই মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এর পর ‘নৌকা’ প্রতীকের সমর্থনে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আনন্দ মিছিল ও আলোচনা সভায় অংশ নেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমদ, ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নূর উদ্দিন, সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ছালামত উল্লাহ, কোতোয়ালি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সৌরিন্দ্রনাথ সেন, চান্দগাঁও কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ কুতুব উদ্দিন, বাকলিয়া কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলী হোসেন, পাঁচলাইশ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আহমদ মিয়া, খুলশী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউসুফ, আকবর শাহ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সেলিম উল্লাহ, পাহাড়তলী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী জাফর আহমদ, হালিশহর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইউনুছ, বন্দর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল আলম, পতেঙ্গা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা জাগির হোসেন, সদরঘাট কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর আলম, ডবলমুরিং সমন্বয়কারী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল লতিফ প্রমুখ।

বিএনপি-জামায়াতের প্রত্যাখান:

তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন এখন জনগণের প্রতিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে বলে দাবি করেছে মহানগর বিএনপি।

তফসিল ঘোষণার পরপরই প্রতিবাদে পাহাড়তলী নয়াবাজারে পাহাড়তলী থানা যুবদলের নেতাকর্মীরা মশাল মি‌ছিল বের করে। মহানগর যুবদল নেতা আ‌লিফ উ‌দ্দিন রু‌রে‌লের নেতৃত্বে চট্টেশ্বরী রোড়ে মশাল মি‌ছিল করা হয়, চাঁন্দগাও থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক আবদুর রহমান আলফাজের নেতৃত্বে বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল এলাকায় চাঁন্দগাও থানা ছাত্রদলের মশাল মি‌ছিল বের করে। আগ্রাবাদ এ‌ক্সেস রো‌ড়ে মহানগর ছাত্রদলের মিছিলে পুলিশ হামলা চালালে পু‌লি‌শের সাঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

এদিকে তফসিল ঘোষণার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগরী জামায়াত বিক্ষোভ মিছিল বের করে। জামায়াতের মহানগরীর মজলিশে শূরার সদস্য আবু ফাইরুজের নেতৃত্বে কোতোয়ালি এলাকায়

বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার কেয়ারটেকার সরকারের গণদাবি পাশ কাটিয়ে একতরফা নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করে জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। কিন্তু রাজপথে দেশপ্রেমিক জনতা তাদের সে ষড়যন্ত্র সফল হতে দেবে না বরং গণবিরোধী যে তফসিল জনগণের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়েছে জনগণ জীবন দিয়ে হলেও রুখে দেবে।

সংবাদটি প্রথম প্রকাশিত হয় বার্তা ২৪-এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *