খেলার খবর

প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে হাসারাঙ্গা ঘূর্ণিতে লঙ্কানদের বড় জয় 

ডেস্ক রিপোর্ট:  

চোটের কারণে গত বছরে এশিয়া কাপের পর বিশ্বকাপেও খেলা হয়নি ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার। সেই চোট কাটিয়ে ৬ মাসেরও বেশি সময় পর মাঠে ফিরলেন তিনি। সেখানে লেগ স্পিন ঘূর্ণিতে প্রত্যাবর্তনের ম্যাচটি স্মরণীয় করে রাখলেন এই লঙ্কান তারকা। 

ফেরার ম্যাচেই ওয়ানডেতে হাসারাঙ্গার ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ে (১৯ রানে ৭ উইকেট) স্রেফ ৯৬ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। এতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে ৮ উইকেটের বড় জয়ে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জেতে লঙ্কানরা। 

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে এদিন টসে জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় জিম্বাবুয়ে। তবে শুরুতেই বাগড়া দেয় বৃষ্টি। এতে ম্যাচ থামার আগে ৮ ওভারে বিনা উইকেটে ৪১ রান তোলে সফরকারীরা। শুরুতে দারুণ ছন্দে এগোতে থাকা জিম্বাবুয়ের বিপত্তি আসে বৃষ্টি থামার পর। দুই দফার বৃষ্টিতে ম্যাচ করে আসে ২৭ ওভারে। 

বৃষ্টি থামার যেন শুরু হয় হাসারাঙ্গার উইকেট বৃষ্টি। জিম্বাবুয়ের দলীয় ৪৩ থেকে ৪৮ রানের মধ্যেই শুরুর চার ব্যাটারকে সাজঘরের রাস্তা মাপান তিনি। সেখানে থামেননি এই লঙ্কান লেগ স্পিনার। পরে তুলে নিয়েছেন আরও তিন উইকেট। এতে ৫ ওভার ৫ বলে স্রেফ ১৯ রান খরচে ৭ উইকেট তুলে নেন হাসারাঙ্গা। এটি কেবল হাসারাঙ্গার ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগারই নয়, ওয়ানডে ইতিহাসের পঞ্চম সেরা বোলিং ফিগারও। এতে সহজ সমীকরণে ম্যাচসেরাও খেতাবটিও নিজের দখলে রাখেন হাসারাঙ্গা। 

এদিকে শেষ পর্যন্ত শত রানও পেরোতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। ২২ ওভার ৫ বলে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৯৬ রানে থামে ক্রেইগ আরভিনের দল। সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন ওপেনার জয়লর্ড গামবি। 

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় স্বাগতিকরা। রানের খাতা না খুলে প্রথম ওভারেই সাজঘরে ফেরেন আভিস্কা ফার্নান্দো। তবে চাপ সামলে দলকে অনায়াস জয়ে পৌঁছে দেন অধিনায়ক কুশল মেন্ডিস। তার ব্যাট থেকে আসে ৫১ বলে ৬৬ রান। এতে ৮ উইকেট ও ৬২ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় স্বাগতিকরা। 

সংবাদটি প্রথম প্রকাশিত হয় বার্তা ২৪ ডট কম-এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *